Rifat’s murder: Govt ordered to issue red alert at borders against killers Study Book BD

Rifat’s murder: Govt ordered to issue a red alert at borders against killers. The government has been arrested for demanding immediate arrest of the accused in the case for killing Rifat.

The High Court directed Abdullah-al-Mahmud Bashar, a High Court lawyer to contact the Inspector General (IGP) to take necessary steps to this effect.

DAJ has been asked to submit a progress report to the court on Thursday.

Justice FM Najmul Ahsan and Justice KM Kamrul Kader ordered the proceedings of Suu Moto (voluntary) after the report in the newspaper report about the killing of Bench Rifat.

SC lawyer Barrister Ruhul Kuddus presented the newspaper report in front of the Bench for the necessary orders to Kajalpleedsad.

According to the court order, DAG told Bashar court that he had already contacted and in this order spoke to the Deputy Commissioner and Police Superintendent of Barguna.

DC and SP said that the victim’s father Abdul Halim filed a case against Rifat for killing 12 people in Barguna Sadar Police Station.

Police have already arrested Chandan and tried to arrest other accused in the case.

DAG said DC and SP hoped that the law enforcement agencies could arrest other accused in very short time and face trial.

Police said the investigation of the case will be done properly.

Bangla

রিফাতকে হত্যার দায়ে মামলার আসামিদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবিতে সরকারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য মহাপরিদর্শক (আইজিপি )কে যোগাযোগ করতে হাইকোর্টের আইনজীবী আব্দুল্লাহ-আল-মাহমুদ বাশারকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

আগামী বৃহস্পতিবার আদালতে এই মামলার অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য ডিএজিকে বলা হয়েছে।

বিচারপতি এফ এম এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ রিফাতকে হত্যার ঘটনায় সংবাদপত্রে রিপোর্টের পর সুও মটো (স্বেচ্ছাসেবী) পদক্ষেপের আদেশ দেন।

এসসি আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলপ্লেস্ডকে প্রয়োজনীয় আদেশের জন্য হাইকোর্ট বেঞ্চের সামনে সংবাদপত্রের রিপোর্ট পেশ করে।

আদালতের নির্দেশে ডিএজি বাশার আদালতে বলেন, তিনি ইতোমধ্যে যোগাযোগ করেছেন এবং এই আদেশে বরগুনার ডেপুটি কমিশনার ও পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলেছেন।

ডিসি ও এসপি জানায়, শিকারের পিতা আবদুল হালিম রিফাতকে হত্যার জন্য 1২ জনকে বরগুনা সদর থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ ইতিমধ্যে অভিযুক্ত চন্দনকে গ্রেফতার করেছে এবং মামলার অন্যান্য আসামিকে গ্রেপ্তার করার চেষ্টা করছে।

ডিএজি জানায়, ডিসি ও এসপি আশা করেছিল যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অন্যান্য অভিযুক্তকে খুব অল্প সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করতে পারবে এবং বিচারের সম্মুখীন হবে।

মামলার তদন্ত সঠিকভাবে সম্পন্ন করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

Now visiting here all news

Leave a comment

Author: Study Book BD

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.